Logo
Notice :
Welcome To Our Website...
এনজিও  সভানেত্রী বিরুদ্ধে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ ওঠে 

এনজিও  সভানেত্রী বিরুদ্ধে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ ওঠে 

বার্তা পরিবেশক // ভোলা সদর উপজেলাধীন  ৫ নং বাপ্তা ইউনিয়নের দক্ষিণ চরনোয়াবাদ ৮ নং ওয়ার্ডের ১ নাজমা বেগম স্বামী মো:বিল্লাল ২ বিল্লাল পিতা বজলুর রহমান ৩ শরিফ হোসেন  পিতা বজলুর রহমান ৪ বজলুর রহমান  পিতা মৃত আ: মজিদ খা র বিরুদ্ধে   বিভিন্ন এনজিও প্রতিষ্ঠান  নামভাঙ্গে  গিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা    আত্মসাৎ  করার অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী ১আংকুর বেগম স্বামী  নাছির ২চাম্পা বেগম স্বামী  আনছার আলী ৩ হান্না বেগম স্বামী মো:রতন সহ আরো অনেক জনের নাম দিয়ে টাকা উত্তোলন  করেছন বলে জানান ভুক্তভোগী রা। ঘটনাস্থলে জানা জায় এলাকার  সহজ সরল মহিলাদের বিভিন্ন  রকম ছলোনা পলোভন দেখাইয়া  ভুল বুঝাইয়া  গ্রামীণ জন উন্নয়ন সংস্থা সমিতি আশা সমিতি ও পদক্ষেপ সমিতি এবং নগদ হাত ক্যাশ লোন সহ প্রায় ৩৭ জন মহিলাদের কাছ থেকে বহু টাকা হাতাইয়া নেয় । এবং সে টাকা-পয়সার নিয়ে তারা ঘরের কাজ করে এবং তার এক ভাই আমাদের টাকা দিয়ে টাইস করে ঘর করেছে।  ২০১৮ সালে হইতে ২০২০ ইং সালের মধে নাজমা বেগম একে অপরের যোগাযোগ  এর মাধ্যমে  লাভবান হওয়ার দুরাশায় একই এলাকার  সহজ সরল মহিলাদের প্রতারণার  ফাকে ফালাইয়া গ্রামীণ জন উন্নয়ন সংস্থা   সমিতি হইতে  ভুক্তভোগী  ১ রোকেয়া বেগম  কে দিয়া বিগত ৩/১২/১৯ সনে ৪৯০০০/ হাজার টাকা ১৬/৭/১৯ ইং জয়নাল  কে দিয়া ৪৯০০০/ হাজর টাকা এমন আরও এলাকার অনেক সহজ সরল মহিলাদের কাছ থেকে অন্য কাজ দেখিয়ে নাম লিখিয়ে তাদেরকে দিয়ে টাকা উত্তোলন করে নাজমা নিয়ে যায় বলে জানা যায়।টাকা-পয়সার বিষয় একজনের টা আরেকজনের জানতে দেয়নি কৌশলে লক্ষ লক্ষ টাকা নাজমার নিয়ে নিজে লাভবান হওয়ার জন্য আমাদের সবাইকে বোকা বানিয়ে টাকা নিয়ে নিচ্ছে। এখন এনজিও প্রতিষ্ঠান লোক এসে আমাদেরকে টাকা দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে এখন আমরা না টাকা খেয়ে উল্টা জরিমানা দিতে হয়েছে। এ বিষয়ে  ভুক্তভোগীরা জানান আমরা জেনো এটা সুস্থ পয়ছালা পাই এটাই এনজিও প্রতিষ্ঠান কাছে দাবি। এ বিষয়ে নাজমা বেগমের সাথে আলাপ করলে তিনি জানান আমার বিষয় যে সমস্ত অভিযোগ আছে যদি কোন প্রমাণ দেখাতে পারে  তাহলে আমি টাকা  দেব যার যার টাকা শে ষে নিয়েছে আমি নেব কেন আমার নামে আমার স্বামীর নামের টাকা আমি নিয়েছি সে টাকা খরচ করে আমি ঘর করেছি।  এই বিষয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে গেলে তারা বাড়িতে বসে নাজমা বেগম কে টাকার কথা জিজ্ঞাসা করলে নাজমা শিকার হন এবং কি  দুই মাসের সময় নেন তখন বিচারক মোশারফ মাল ও কামাল মেম্বার জাহাঙ্গীরসহ  বলেন তুমি সময় নিতে হলে  এনজিও প্রতিষ্ঠান কর্মীর কাছে নেও। ছবি সংযুক্ত 

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *