Logo
Notice :
Welcome To Our Website...
ছাত্রলীগ নেতার কবজি বিচ্ছিন্ন করার ঘটনায় মামলা, গ্রেপ্তার ২

ছাত্রলীগ নেতার কবজি বিচ্ছিন্ন করার ঘটনায় মামলা, গ্রেপ্তার ২

বার্তা পরিবেশক // পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় ছাত্রলীগ নেতা শুভ শীলের (২০) ডান হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন করার অভিযোগে মামলা হয়েছে। গত বুধবার রাতে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান ৩৮ জনকে আসামি করে মামলাটি করেন। পুলিশ ওই মামলার দুই আসামি উপজেলার বড়মাছুয়া গ্রামের ফজলে রাব্বি (২২) ও দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের মৃদুল আহমেদকে (২১) গ্রেপ্তার করেছে। আজ বৃহস্পতিবার মঠবাড়িয়া থানার ওসি এ জেড এম মাসুদুজ্জামান এসব তথ্য জানিয়েছেন।


শুভ শীল মঠবাড়িয়া পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি পৌরসভার দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের শ্যামল চন্দ্র শীলের ছেলে। তিনি বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে শুভ শীল মঠবাড়িয়া শহর থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। রাত সাড়ে আটটার দিকে স্থানীয় ওহাবিয়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসা এলাকায় পৌঁছালে সেখানে ওত পেতে থাকা মঠবাড়িয়া পৌর ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহসভাপতি শাকিল আহমেদের নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন শুভ শীলের ওপর হামলা চালান। এ সময় ধারালো অস্ত্র দিয়ে শুভ শীলের ডান হাতের কবজি কেটে নিয়ে যান। পরে স্থানীয় লোকজন হাসপাতাল সেতুর ওপর থেকে শুভর বিচ্ছিন্ন কবজি উদ্ধার করেন এবং শুভ শীলকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত চিকিৎসক শুভকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। গতকাল বুধবার ওই হাসপাতালে শুভর হাতে অস্ত্রোপচার হয়েছে।


ছাত্রলীগ নেতা শুভ শীলের ওপর হামলা চালানোর ঘটনায় গত বুধবার রাতে মঠবাড়িয়া থানায় হওয়া মামলায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মঠবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র রফিউদ্দিন আহমেদের ছেলে উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলামকে আসামি করা হয়েছে। এ ছাড়া ওই মামলায় ছাত্রলীগ নেতা শাকিল আহমেদ ওরফে সাদীকে প্রধান আসামি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান বলেন, স্থানীয় ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে প্রতিপক্ষ শুভ শীলের হাতের কবজি কেটে ফেলেছে।

মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ জেড এম মাসুদুজ্জামান বলেন, ছাত্রলীগ নেতা শুভ শীলের হাতের কবজি কেটে নেওয়া ঘটনার মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই মামলার অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

দলীয় সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মঠবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র রফিউদ্দিন আহমেদের সঙ্গে উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আশরাফুর রহমানের বিরোধ চলছে। গত চার বছরে দুই পক্ষের বিরোধে তিনজন খুন হয়েছেন। শুভ শীল উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আশরাফুর রহমানের অনুসারী ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *