Logo
Notice :
Welcome To Our Website...
কলাপাড়া উপজেলায় অমাবস্যার প্রভাবে, নিম্নঅন্ঞল প্লাবিত, পানি বন্দী কয়েক হাজার পরিবার

কলাপাড়া উপজেলায় অমাবস্যার প্রভাবে, নিম্নঅন্ঞল প্লাবিত, পানি বন্দী কয়েক হাজার পরিবার

পটুয়াখালী কলাপাড়া প্রতিনিধি মোঃ ফিরোজ তালুকদার // উপজেলায় অমাবশ্যার প্রভাবে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। উপজেলার পৌরশহরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ঘর-বাড়ীতে পানি ঢুকে পড়ায় মানুষ ৫ থেকে ৬ ঘন্টা অপেক্ষাকৃত উচুঁস্থানে আশ্রয় নিয়েছে। ক্ষতির শিকার হয়েছে ওয়াপদা বেড়িবাঁধের বাহিরে বসবাসরত কয়েক হাজার পরিবার, মৎস্য ব্যবসায়ী সহ অন্যান্য ব্যবসায়ীরা। জানা গেছে, আমবশ্যার প্রভাবে বুধবার থেকে স্বাভাবিক জোয়ারের তুলনায় ৬ থেকে ৭ ফুট পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার লালুয়া ও মহিপুর ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ ঘড় বন্দি হয়ে পরেছে। অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত ও নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় অচল হয়ে পরেছে গোটা উপজেলার মানুষ। লালুয়া ইউনিয়নের চাড়িপাড়া, নাওয়াপাড়া, পশরবুনিয়া, চান্দুপাড়া, চড় চান্দুপাড়া, ধঞ্জুপাড়া, কলাউপাড়া, মুন্সিপাড়া, নয়াকাটা, চৌধুরীপাড়া, চড়পাড়া, ছোনখোলা, ১১ নং হাওলা, ছোট ৫নং ও বড় ৫ নং গ্রামগুলো সম্পূর্ন পানির নিচে তলিয়ে রয়েছে। মহিপুর থানার মহিপুর ইউনিয়নের নজিবপুর, কমরপুর, সুধিরপুর, ইউছুফপুর, পুরান মহিপুর, নিজামপুর, মনোহরপুর, লতিফপুর, মোয়াজ্জেমপুর ও বিবিনপুর গ্রামগুলোও পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এছাড়াও পৌরশহরের মাছ বাজার, সবজি বাজারসহ উপজেলার ওয়াপদা বেড়িবাঁধের বাহিরে পানি ঢুকে পড়ায় মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে অসহায় পরিবারগুলো। অনেক পরিবারের দুপুরের উনুন পর্যন্ত জ্বলেনি। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মানুষদের আশে পাশের বাড়ী-ঘরে আশ্রয় নিতে দেখা গেছে। জলবায়ু পরিবর্তনগত কারনে নদীতে স্বাভাবিক জোয়ারের তুলনায় অতিরিক্ত পানি ও দিনরাত ভারি বর্ষনের কারনে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে এলাকার অভিজ্ঞমহল মনে করছেন। উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের চারিপাড়া গ্রামের পানি বন্দি হাসি বেগম জানায়, দিনরাত বৃষ্টি আর সেই সাথে নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় আমাগো ঘড় বাড়িতে পানি উঠে গেছে। নদীতে পানি বাড়লে আমাগো খাওয়া ঘুম হারাম

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *