Logo
Notice :
Welcome To Our Website...
News Headline :
পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২ যুগ পূর্তি উপলক্ষে ছাত্রলীগ নেতা আনন্দ র‌্যালি পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তির ২৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে বরিশাল ১০নং ওয়ার্ড আ’লীগের আনন্দ র‌্যালি বরিশালে চাকরি প্রার্থীদের অর্ধকোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা আরএম গ্রুপ কুয়াকাটা সৈকতে রাতের আকাশে ফানুসের মেলা কাউন্সিলর হত্যা মামলার প্রধান আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত পটুয়াখালীতে ১৪ মণ জাটকা জব্দ, তিন ব্যবসায়ীকে জরিমানা গভীর রাতে সাজেকে ৪ রিসোর্ট পুড়ে ছাই, সাড়ে ৩ কোটি টাকার ক্ষতি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে রেকর্ড সংখ্যক ভর্তির আবেদন বরিশালে পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২যুগ পূর্তি উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পূস্পার্ঘ অপর্ণ যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সদাপ্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী
বরিশাল মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তার হাতকড়া নিয়ে পালাল যুবক(!)

বরিশাল মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তার হাতকড়া নিয়ে পালাল যুবক(!)

বাংলাদেশ ক্রাইম // বরিশাল নগরীতে এক নিরাপরাধ যুবককে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে উল্টো নিজেই বিপদে পড়েছেন মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তা। পলাশপুর এলাকার হৃদয় নামের যুবক পালিয়ে যায় বরিশাল মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক আব্দুল মালেক তালুকদারের হাতকড়া নিয়ে। শহরের স্টেডিয়ামের সম্মুখ বান্দরোড এলাকায় ওই যুবকের কাছে গাঁজা আছে অভিযোগ তুলে তাৎক্ষণিক হাতকড়া পরিয়ে দেন তিনি। এসময় কৌশলে ওই যুবক হাতকড়াসহ পালিয়ে এলাকায় চলে আসেন। অনেকটা সময় ধরে হন্যে হয়ে খোঁজার পরে যুবককে না পেয়ে পরিদর্শক আব্দুল মালেক স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের হস্তক্ষেপে হাতকড়াটি উদ্ধার করতে সক্ষম হলে যেন হাফ ছেড়ে বাঁচেন। 

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, নগরীর পলাশপুর এলাকার শাহাদত হোসেনের ছেলে হৃদয় (২২) স্টেডিয়ামে ফুটবল খেলা শেষে বাসায় ফিরছিলেন। একপর্যায়ে তিনি বান্দরোড এলাকায় পৌছালে মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মালেক অভিযোগ তোলেন যুবকের কাছে গাঁজা আছে এবং সাথে সাথে তাকে আটক করে হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে দেন। এনিয়ে যুবকের সাথে তর্কে-বিতর্কে সেখানে উৎসুক জনতা ভীড় করে। এসময় কৌশলে যুবক হাতকড়াসহ পালিয়ে যায়। প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক সূত্র এ তথ্য বরিশালটাইমসকে নিশ্চিত করে।

সূত্রগুলো জানায়, যুবককে অহেতুক আটক করার পর ঘটনাস্থলেই জনরোষে পড়েন কর্মকর্তা মালেক। এসময় তার ওপরে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি চড়াও হলে তখন যুবক হাতকড়াসহ পালিয়ে যায়। তখন তিনি গাড়ি নিয়ে যুবকের পেছন পেছন ছুটতে থাকেন। অনেক খোঁজা-খুঁজির পরেও না পেয়ে পরিদর্শক সর্বশেষ যুবকের বাসা ৬ নম্বর ওয়ার্ডে গিয়ে প্রথমে নারী কাউন্সিলর জাহানারা বেগম ও পরে কাউন্সিলর কেফায়েত হোসেন রনির দ্বারস্থ হন। অবশ্য এখানেও তাকে যুবককে ফাঁসানো নিয়ে নানান প্রশ্নের সম্মুখিন হতে হলেও চাকরি বাঁচানোর দোহাই দিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করে অন্তত হাতকড়াটি উদ্ধার করে দেওয়ার অনুরোধ রাখেন।

পরে কাউন্সিলর রনি ভুমিকা রেখে পরিদর্শক আব্দুল মালেক তালুকদারের হাতকড়াটি উদ্ধার করে দেন। সেই সাথে এমন অনৈতিক কাজের সাথে সম্পৃক্ত না থাকার পরামর্শ দেন।

এই বিষয়ে জানতে পরিদর্শক আব্দুল মালেক তালুকদারের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে এর আগে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বিপদে আছেন জানিয়ে বিষয়টি চেপে যাওয়ার অনুরোধ রাখেন।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *