Logo
Notice :
Welcome To Our Website...
তবুও কমছে না আলু-পিয়াজের দাম

তবুও কমছে না আলু-পিয়াজের দাম

বাংলাদেশ ক্রাইম // শীতের সবজি বাজারে এলে আলু-পিয়াজের দাম কমবে বলে জানিয়েছিলেন খুচরা ব্যবসায়ীরা।বাজারে এখন শীতের সবজির সরবারহ বেড়েছে। দামও কমে আসছে।তবে আলু-পিয়াজের দাম কমার লক্ষণ নেই।রাজধানীর বাজারে কেজিতে ৫ থেকে ১০ টাকা কমেছে কয়েকটি সবজির দাম।এতে ক্রেতাদের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফিরলেও পুরোপুরি সন্তষ্ট নন। কারণ আগের মতোই বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে আলু ও পিয়াজসহ বেশ কয়েকটি পণ্য। খুচরা বাজারে আলু কেজিপ্রতি ৪৫-৫০ টাকা আর দেশি পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকায়।বাড়তি রয়েছে চালের দরও।নতুন ধান উঠলেও বাজারে কোনো প্রভাব পড়েনি।আজ রাজধানীর কাওরান বাজারসহ কয়েকটি এলাকায় খোঁজ নিয়ে এমন তথ্য জানা গেছে।

সরজমিনে দেখা যায়, কারওয়ান বাজারের পাইকারি দরে দেশি পিয়াজ ৬৫ থেকে ৭০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া মিশর ও চীন থেকে আমদানি করা পিয়াজ ৩৫ থেকে ৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। পাইকারি বাজারে আলু ৪০ থেকে ৪২ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। আর খুচরা বাজারে আলুর দাম ৪৫ থেকে ৫০ টাকা।

কাওরান বাজারের বিক্রমপুর ট্রেডার্সের বিক্রেতারা জানান, বাজারে আলুর সংকট রয়েছে।

সেজন্য দাম কমছে না। বরং আরো বাড়তে পারে।নতুন আলু উঠলে পুরান আলুর দাম কমতে পারে। অন্য সবজির দামের সঙ্গে আলুর দাম কমার কোন সম্পর্ক নেই বলে জানান তারা। তারা বলেন, শীতের সবজি আসায় সেগুলোর দাম কমছে। যেসব সবজির উৎপাদন হচ্ছে সেগুলোর দাম কমছে। শীতকালে অনেক সবজির সরবারহ হয়।কিন্তু আলুর তো সংকট চলছে। আলুর সরবারহ বাড়লেও দাম কমবে বলে জনানা তারা। পিয়াজ বিক্রেতারা বলেন, আমদানি করা পিয়াজের দাম অনেক কমে এসেছে। তবে বাজারে দেশি পিয়াজ কম তাই দাম একটু বেশি।আমদানি করা পিয়াজের দাম কমলেও মানুষ দেশি পিয়াজ খান। সেজন্য দেশি পিয়াজের চাহিদা বেশি। তাছাড়া বাজারে আর কিছু দিনের মধ্যে দেশে উৎপাদিত গাছসহ পিয়াজ আসবে। তখন কিছুটা দাম কমতে পারে বলে জানান তারা।


ওদিকে সবজির দাম কিছুটা কমেছে। সরজমিনে কাওরান বাজারে ফুলকপি, বাধাকপিসহ শীতের সবজির প্রচুর সরবারহ দেখা গেছে। এই সবজির প্রতি ক্রেতাদের আগ্রহও বেশি। গত সপ্তাহের তুলনায় এসব সবজির অনেকটা কমে এসেছে। তবে ভোক্তারা পুরোপুরি সন্তষ্ট নন। একজন ক্রেতা বলেন, সেভাবে কমছে না। শীতের সবজির দাম আরো কমা উচিত। কাওরান বাজারে বেগুন ৫০ টাকা, ঝিঙ্গা ৫৯ টাকা, বরবটি ৫০ টাকা, পটল ৬০ টাকা, সিম ৫০ টাকা, টমেটো ৯০ টাকা ও গাজর ৭০ টাকা, কাঁচামরিচ ১০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। একজন সবজি বিক্রেতা বলেন, অল্প কিছু সবজির দাম কেজিতে ৫-১০ টাকা কমেছে।তবে বেশির ভাগই এখনো চড়া। গত সপ্তাহের চেয়ে কপির দাম কমেছে ১০ থেকে ১৫ টাকা। শীতের সবজির দাম কমলেও বেগুন, লাউয়ের দাম আগের মতোই।

এদিকে বাজারে চালের দাম আগের মতোই রয়েছে। নতুন ধান উঠলেও দাম কমেনি। বর্তমানে খুচরা বাজারে মিনিকেট ৫৪ থেকে ৫৮ টাকা, আটাশ ৪৬ থেকে ৪৮ টাকা, নাজিরশাইল ৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *